আরবি ভাষা শিখার টিউটোরিয়াল-1~~Hedaet Forum~~


Email: Password: Forgot Password?   Sign up
Are you Ads here? conduct: +8801913 364186

Forum Home >>> Literature >>> আরবি ভাষা শিখার টিউটোরিয়াল-1

Tamanna
Modarator Team
Total Post: 7488

From:
Registered: 2011-12-11
 

আরবি ভাষার সকল শব্দকে তিন ধরণে শ্রেণীবদ্ধ করা যায়: আরবি ভাষার সকল শব্দকে তিন ধরণে শ্রেণীবদ্ধ করা যায়:
১. اسم – (ইসম) এটি বাংলায় বিশেষ্য বা নামপদ অর্থাৎ ইংরেজিতে Noun। কিন্ত اسم – (ইসম) শুধু বিশেষ্য বা Noun নয়। "ইসম" এ নাম বাচক বা গুণবাচক শব্দও থাকে যেমন Noun, Verbal noun, Adverb/বিশেষ্য, ক্রিয়াবাচক বিশেষণ, ক্রিয়া বিশেষণ। অর্থাৎ এটা সাধারণত কোন কিছুর নাম বা কোন বিশেষ গুণের নাম। আবার কোন কিছুর অবস্থাও এটা দ্বারা বুঝানো হয়। যেমন দ্রুত, ধীরে, রাগ, আনন্দ ইত্যাদি সবই আরবি ব্যাকারণে ইসম এর শ্রেণীভুক্ত।
২. فعل – (ফীল) (ক্রিয়া/verb) – সাধারনত এটা দ্বারা কোন কাজ বুঝানো হয়। এর দ্বারা কাজের সময়ও বোঝা যায়। যেমন অতীত কাল, ভবিষ্যত কাল অথবা বর্তমান কাল।
৩. حرف – (হারফ) – অন্য একটি শব্দের পরে বসে সেই শব্দের অর্থ বোঝাতে সহায়তা করে। ইংরেজি conjunction বলা যেতে পারে।
– (ইসম) এর ব্যাপারে জানা দরকার যে اسم এর সাধারণত চারটা বৈশিষ্ট্য থাকে ।
اسم "ইসম" এর ব্যাপারে একটা মজার ব্যাপার হল আল্লাহ আদমকে (আ.) اسم শিক্ষা দিয়েছেন। যাই হোক اسم এর চারটি বৈশিষ্ট্য হল এই:
১) অবস্থা – Status
২) লিংগ – Gender
৩) বচন – Number
৪) প্রকারভেদ – Type
এখন আমরা اسم এর "অবস্থা" বা State/Status নিয়ে আলোচনা করব।
اسم এর তিন ধরনের "অবস্থা" বা Status আছে।
১) কাজ সম্পাদনকারী Doer Status একে বলে রাফও رفع
২) যার উপর কার্য্য সম্পাদন হয় একে বলে নাসব نصب
৩) অধিকারসূচক বা মালিকানাসূচক, সম্বন্ধসূচক শব্দটি হচ্ছে জাররجر
Status বুঝা যায় শব্দের সাথে দাম্মা, ফাতাহ ও কাসরার ব্যবহার দেখে ।

اسم – (ইসম) এর সাথে একটি বা দুটি দাম্মাহ থাকলে রাফা رفع হবে। যেমন, مُسْلِمٌ

আর নাসাব نصب হলে اسم – (ইসম) এর সাথে এক বা দুইটি ফাতাহ থাকবে। যেমন, مُسْلِمًا
এবং জার جر হলে (ইসম) এর নীচে একটি বা দুটি কাছরা থাকবে। যেমন, مُسْلِمٍ

কোরআন থেকে একটি উদাহরণ দেই।
إِنَّ اللَّهَ لَعَنَ الْكَافِرِينَ আল্লাহ কাফেরদেরকে অভিসম্পাত করেছেন
এখানে আল্লাহ হচ্ছেন রাফা আর কাফেররা হচ্ছে নাসাব।
একি ভাবে وَقَتَلَ دَاوُودُ جَالُوتَ
এখানে دَاوُودُ হচ্ছেন رفع কাকে হত্যা করা হয়েছে? জালুতকে। তাই جَالُوتَ হচ্ছে نصب
এবার جر উদাহরণ দেখা যাক। 📷 এখানে মোহাম্মাদিন্ হচ্ছে جر এর উদাহরণ আর এ বাক্যে সে শব্দটির অবস্থান হচ্ছে مَجْرُورٌ – মাজরুর।
তা হলে

যে কাজ করে সে হল رفع আর কোন বাক্যে শব্দের অবস্থা যখন তা হয় তাকে বলা হয় مرفوعٌ মারফু’উ ।
যার উপর কাজ সম্পন্ন হয় সেটি হল نصب আর কোন বাক্যে শব্দের অবস্থা যখন তা হয় তাকে বলা হয় مننصوب মানসুব
অধিকার বা মালিকানা বাচক হলে বলা হয় জার جر আর কোন শব্দ যখন তা হয় তাকে مَجْرُورٌ মাজরুর বলা যায়।( মাজরুর একটু জটিল এবং বিস্তৃত হরফুল جر এর সাথে সম্পৃক্ত তবে আপাতত সে গভীরে না গিয়ে কেবল এতটুকু বুঝে যাত্রা শুরু করা যায় যে বাক্যে অধিকারসূচক বা মালিকানাসূচক, সম্বন্ধসূচক শব্দটি হচ্ছে জার جر এবং কাসরা থাকবে)

তাহলে এ পর্বের সারাংশ হচ্ছে।

আরবি ভাষার সকল শব্দকে তিন ধরণে শ্রেণীবদ্ধ করা যায় > ইসম, ফীল ও হরফ
اسم এর চারটি বৈশিষ্ট্য হল এই: ১) অবস্থা – State ২) লিংগ – Gender ৩) বচন – Number ৪) প্রকারভেদ – Type
আজ শুধু اسم এর State বা অবস্থা নিয়ে আলোচনা হয়েছে । اسم এর State/অবস্থা হচ্ছে তিনটি রাফা, নাসাব ও জার
কোন বাক্যে اسم এর অবস্থা কখন مرفوعٌ মারফু’উ , مننصوب মানসুব مَجْرُورٌ মাজরুর হবে ও কিভাবে হয় তা আমরা শিখলাম।

ইসম্ اسم সম্পর্কে আরো অনেক কিছু জানার আছে যা আগামি পর্বে থাকছে যার মধ্যে ইসম্ اسم এ নিচের চারটি গুন বিষয়েও জানা যাবে।

নির্দিষ্ট – Definite কিংবা অনির্দিষ্ট – Indefinite বৈশিষ্ট্যসূচক শব্দ
বচন – Number – এক বচন বা বহু বচন
লিংগ – Gender – পুংলিঙ্গ বা স্ত্রীলিঙ্গ
প্রকারভেদ বা রুপ – Type –

ইসম্ اسم সম্পর্কে আরো জানার ব্যাপার হল ইসম্ اسم এ নিচের চারটি গুন থাকে :

নির্দিষ্ট – Definite কিংবা অনির্দিষ্ট – Indefinite বৈশিষ্ট্যসূচক শব্দ হতে পারে
বচন – Number – এক বচন বা বহু বচন হতে পারে
লিংগ – Gender – পুংলিঙ্গ বা স্ত্রীলিঙ্গ হতে পারে
প্রকারভেদ – Type বা Case Ending

নির্দিষ্ট – Definite কিংবা অনির্দিষ্ট – Indefinite বৈশিষ্ট্যসূচক শব্দের তফাৎ বলতে কি বুঝায়? নিচের ছবিতে লক্ষ্য করেন

অনির্দিষ্ট – Indefinite শব্দের শেষে তানউ্ইন থাকে।
আর নির্দিষ্ট – Definite শব্দের পূর্বে الألف لام আলিফ, লাম থাকে।

অনির্দিষ্ট – Indefinite